কালিজিরার উপকারিতা

প্রায় ২ হাজার বছর ধরে কালিজিরা নানা রোগের প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বলা হয়, কালিজিরা নাকি মৃত্যু ছাড়া সব রোগের প্রতিষেধক। বিখ্যাত চিকিৎসাবিজ্ঞানী ইবনে সিনাও এ কথা বলে গেছেন। নিয়মিত কালিজিরা খাওয়ার ফলে মানুষ আজীবন সুস্থ জীবন উপভোগ করতে পারে।

কালিজিরা সর্দিজনিত রোগ প্রতিরোধ করে। সর্দিজনিত কারণে নাক বন্ধ হয়ে গেলে কালিজিরার ভর্তা বিশেষ উপাদেয়। আবার কালিজিরার তেল নাকে দিলেও উপকার পাওয়া যায়। এ ছাড়াও মাথাব্যথা, দাঁতব্যথাসহ চোখ ওঠার ওষুধ হিসেবে কাজ করে কালিজিরা।

অ্যাজমা, অ্যালার্জি, ব্রংকাইটিস, বার্ড ফ্লুর মতো রোগের প্রতিষেধক হলো কালিজিরা। কালিজিরা নিয়মিত খাওয়া বা সেবনের ফলে রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমে। তা ছাড়া রক্তচাপ কমায়। তাই উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের ক্ষেত্রে এটি বিশেষ উপকারী। তবে যাদের নিম্ন রক্তচাপের সমস্যা রয়েছে, তাদের বেশি না খাওয়া ভালো। কেননা বেশি খাওয়ার ফলে রক্তচাপ আরও কমে যেতে পারে, ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা।

কালিজিরা মানবদেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এমনকি নিয়মিত কালিজিরা খেলে ক্যানসার প্রতিরোধ ক্ষমতাও মানবদেহে সৃষ্টি হয়। নারীর পিরিয়ডজনিত সমস্যা দূর করতে কালিজিরা খাওয়া ভালো। গর্ভবতীর বুকের দুধ উৎপাদনে সহায়তা করে কালিজিরা। তা ছাড়া জন্মনিয়ন্ত্রণে কালিজিরা বিশেষ উপাদেয়। বড় ধরনের চিকিৎসায় রোগীদের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কমাতেও কালিজিরা খাওয়া যায়।

কালিজিরায় সিস্টাইন, ভিটামিন সি, সেফ্রেইন থাকে, যা দিয়ে সিসপ্লেটিন নামক প্রতিষেধক হয়, যা কেমোথেরাপির পার্শ্বক্রিয়া দূর করে। অনেকে কালিজিরা খেতে চান না কিন্তু সুস্থ জীবন উপভোগ করতে চাইলে এর কোনো বিকল্প নেই। তাই নিয়মিত কালিজিরা খান, সুস্থ থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *